Header Ads

Header ADS

মরিনহোর বরখাস্তের দাবি পছন্দ করেছেন ম্যানচেস্টার অধিনায়ক!

এই সেই ছবি যেখানে লাইক দিয়ে ঝামেলায় পড়েছেন ভ্যালেন্সিয়া। সংগৃহীত ছবিএই সেই ছবি যেখানে লাইক দিয়ে ঝামেলায় পড়েছেন ভ্যালেন্সিয়া। সংগৃহীত ছবিভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে কাল নিজেদের মাঠে গোলশূন্য ড্র করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। রেড ডেভিলদের ডাগ আউটে হোসে মরিনহোর ভবিষ্যৎ আরও অনিশ্চিত করে দিয়েছে স্প্যানিশ ক্লাবটি। তবু মরিনহোর চাকরি সংক্রান্ত সবচেয়ে বড় চমক দিয়েছেন অন্য ভ্যালেন্সিয়া, আন্তোনিও ভ্যালেন্সিয়া। ইউনাইটেডের বর্তমান অধিনায়ক মরিনহোর বরখাস্তের দাবিতে দেওয়া এক পোস্টে নিজের সম্মতি জানিয়েছেন!
মৌসুমের শুরু না হতেই ইউনাইটেড ও মরিনহোর মধ্যে মন কষাকষি শুরু হয়েছে। দলবদলে নিজের মনমতো খেলোয়াড় পাননি মরিনহো। এর প্রভাবে হোক কিংবা অন্য কারণে, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শুরুটা ভালো হয়নি ইউনাইটেডের। ৭ ম্যাচ শেষে মাত্র ১০ পয়েন্ট। এর বাইরে স্কোয়াডের খেলোয়াড়দের সঙ্গে মরিনহোর মনোমালিন্য চলছে। পল পগবাকে একবার সহ-অধিনায়কত্ব দিয়ে আবার কেড়েও নিয়েছেন। ইউনাইটেডে মরিনহো আর কদিন থাকবেন এ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করা হচ্ছে। এর মধ্যে ভ্যালেন্সিয়া ঘটালেন অবাক এই ঘটনা।
কাল চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজেদের মাঠে খেলছে ইউনাইটেড। কিন্তু পুরো ম্যাচে দাপট দেখিয়ে বেড়িয়েছে ভ্যালেন্সিয়া। এ ম্যাচের আগেই ক্লাব কিংবদন্তি পল স্কোলস বলে দিয়েছেন, মরিনহোর খেলার ধরন ইউনাইটেডের জন্য ‘অপমানদায়ক’। আর গতকালের ম্যাচ তো সমর্থকদের দুঃখ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। ইনস্টাগ্রামে এক ইউনাইটেড সমর্থক ভ্যালেন্সিয়ার ছবি দিয়ে লিখেছিলেন, ‘আমি ম্যাচের এমন ফলে একটুও অবাক হইনি। আমি সব সময় আমাদের খেলার জন্য প্রতীক্ষায় থাকতাম। কিন্তু ইদানীং মরিনহো যা দেখাচ্ছে তাতে ব্যাপারটা শাস্তিতে রূপ নিয়েছে। পরিবর্তন দরকার। মরিনহোর যাওয়ার সময় হয়েছে।’ এমন একটি পোস্টেই লাইক দিয়েছেন ভ্যালেন্সিয়া, মরিনহোর বেছে নেওয়া অধিনায়ক।
এমন খবরে সবাই নড়েচড়ে বসেছেন। তাহলে কি মরিনহোর ইউনাইটেড পর্ব শেষ? ভ্যালেন্সিয়া দ্রুত নিজের ভুল বুঝতে পেরে টুইটারে লিখেছেন, ‘গতকাল ইনস্টাগ্রামে আমি লেখা না পড়েই একটা ছবিতে লাইক দিয়েছিলাম। কিন্তু আমি এ কথাগুলোর সঙ্গে একমত নই এবং এ জন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি। ম্যানেজার ও সতীর্থদের প্রতি আমার পূর্ণ সমর্থন আছে। ফল ভালো করার জন্য আমরা সবাই সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি।’
টুইটারে এমন পোস্ট করলেও কি সবার কৌতূহল মেটানো যায়? ভ্যালেন্সিয়াকে তাই আবারও জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল , পগবার পর তাঁর সঙ্গেও মরিনহোর সম্পর্কে ফাটল ধরেছে কি না। ভ্যালেন্সিয়া জানাচ্ছেন তেমন কিছু হয়নি, ‘না, খোদাকে ধন্যবাদ, আমার কখনো কারও সঙ্গে সমস্যা হয় না। এটা কোচের সিদ্ধান্ত (অধিনায়কত্ব), আমাদের ইতিবাচক দিকগুলোতে দৃষ্টি দেওয়া উচিত। ’
Powered by Blogger.