অন্ধ হয়ে টি-টোয়েন্টিতে ডাবল সেঞ্চুরি!

Image
ফ্রেডরিক বোয়ের। ছবি: ফেসবুক
দক্ষিণ আফ্রিকায় দৃষ্টিহীনদের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে দ্বি শতক রানের ইনিংস খেলেছেন এক ব্যাটসম্যান ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্বি শতক আছে সর্বসাকল্যে আটটি। টি-টোয়েন্টিতে নেই। একটু ভুল হলো। দ্বি শতক আছে। তবে সেটি একটু ভিন্ন ধরনের ক্রিকেট প্রতিযোগিতায়। দৃষ্টিশক্তি নেই এমন ক্রিকেটারদের টুর্নামেন্টে দ্বি শতক রানের ইনিংস, ভাবা যায়!
ঘটনাস্থল দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রিটোরিয়ায় ব্লাইন্ড ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে বোল্যান্ডের হয়ে দ্বি শতক রানের ইনিংস খেলেছেন ফ্রেডরিক বোয়ের। কাল রাউন্ড রিপন লিগের শেষ ম্যাচে ফ্রি স্টেটের বিপক্ষে ২০৫ রানের ইনিংস খেলেন বোল্যান্ডের হয়ে খেলা এই ব্যাটসম্যান। কোনোরকম দৃষ্টিশক্তি ছাড়াই মাত্র ৭৮ বলে ইনিংসটি খেলেন বোয়ের। ৩৯টি চার আর ৪ ছক্কায় সাজানো তার এই ইনিংসে স্ট্রাইক রেট ২৬৩। ২০৫ রানের এই ইনিংসে ১৮০ রানই এসেছে বাউন্ডারি থেকে—যা তাঁর মোট রানের ৮৭ শতাংশ।
দুর্দান্ত এই ইনিংসটি খেলার পথে অন সাইড থেকে ১২৮ রান তুলে নেন বোয়ের। এর মধ্যে মিড উইকেট থেকে তুলেছেন ৭৮ রান। বোল্যান্ডের ইনিংসে শেষ বলে আউট হন তিনি। তবে বোয়েরের …

ভারতকে ১৭২ রানে গুটিয়ে দিল যুবারা

যুব এশিয়া কাপের ফাইনালে খেলতে ভারতের বিপক্ষে ১৭৩ রানের লক্ষ্য বাংলাদেশের যুবাদের। ফাইল ছবিযুব এশিয়া কাপের ফাইনালে খেলতে ভারতের বিপক্ষে ১৭৩ রানের লক্ষ্য বাংলাদেশের যুবাদের। ফাইল ছবি
অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ ক্রিকেটের ফাইনালে উঠতে ভারতের বিপক্ষে ১৭৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামবে বাংলাদেশ। প্রথমে ব্যাটিং করে ভারত গুটিয়ে গেছে ১৭২ রানে। দুর্দান্ত বোলিং করেছেন বাঁহাতি পেসার শরিফুল, ১৬ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয় কথাটা ভুল বলেননি। কাল সাংবাদিকদের বলছিলেন, ‘আমাদের যে বোলিং লাইনআপ, আমাদের বিপক্ষে রান করা একটু কঠিন।’ কতটা কঠিন সেটি আজ ভারতীয় যুবারা হাড়ে হাড়ে টের পেলেন। গ্রুপ পর্বে ইনিংস প্রতি প্রায় ৩০০ রান করা ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দল আজ ৪৯.৩ ওভারে অলআউট ১৭২ রানে।

টুর্নামেন্টে সবচেয়ে শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপ, টুর্নামেন্টজুড়ে ব্যাটিংটাও হয়েছে দুর্দান্ত—মেঘলা আবহাওয়া থাকার পরও টস জিতে ব্যাটিং নিতে এটিই হয়তো উৎসাহিত করেছে ভারতীয় অধিনায়ককে। কিন্তু কন্ডিশনটা যে দুর্দান্ত শুরু এনে দেওয়ার জন্য সহায়ক নয়, মাত্র ১ রানে আউট হয়ে সেটি বুঝিয়েছেন গ্রুপ পর্বে আরব আমিরাতের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করা ভারতীয় ওপেনার দেবদূত পাদিকাল। শুরুতেই বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দেওয়ার কারিগর বাঁ হাতি পেসার শরিফুল ইসলাম।
ভারতীয় যুবাদের ২০০ রানও করতে না দেওয়ার মূল কারিগর আসলে দুই বাঁ হাতি পেসার শরিফুল ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী। সবচেয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন শরিফুল। ১০ ওভার বোলিং করে এক মেডেনে ১৬ রানে দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট। আর মৃত্যুঞ্চয় ৯.৩ ওভারে ২৭ রানে নিয়েছেন ২ উইকেট।
৩ রানে ওপেনার দেবদূতকে হারানো ভারতের সবচেয়ে লম্বা জুটিটা হয়েছে অঞ্জু রাওয়াত-ইয়াশভি জইশওয়ালের দ্বিতীয় উইকেটে। দুজনের ৬৩ রানের জুটি ভাঙে তৌহিদ হৃদয়ের অফ স্পিন। হৃদয়ের অফ স্পিন আর রিশাদ হোসেনের লেগ স্পিন বড় স্কোর গড়তে দেয়নি ভারতীয় মিডঅর্ডারকে। বাংলাদেশের দুই স্পিনারের যুগলবন্ধীতে ভারত ৭৭ রানে হারিয়ে ফেলে ৫ উইকেট। দুই স্পিনার নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। একটা সময় ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ১০০ করা নিয়েই ছিল টানাটানি! আয়ুশ বাদোনি-সামীর চৌধুরীর ষষ্ঠ উইকেট জুটি ৫৯ রান যোগ করায় এ ‘চ্যালেঞ্জ’টা উতরে গেলেও ১৭২ রানের বেশি ভারত করতে পারেনি।
বাংলাদেশের বোলাররা নিজেদের কাজটা ভালোভাবেই করেছেন। ভারতকে হারিয়ে শিরোপার লড়াইয়ে নামতে হলে এখন ব্যাটসম্যানরা তাঁদের কাজটা ঠিকঠাক করলেই হয়।

Popular posts from this blog

নোয়াখালীতে উৎসবমুখর পরিবেশে উন্নয়ন মেলা শুরু

হঠাৎ করেই উপস্থিত দীঘি

অন্ধ হয়ে টি-টোয়েন্টিতে ডাবল সেঞ্চুরি!